নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজে গাড়িতে সিট বেল্ট বেঁধে এবং গাড়িচালক ও দেহরক্ষীকে সিট বেল্ট বাঁধতে উৎসাহিত করে আইন মানার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

সম্প্রতি দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে বের হওয়ার সময় এমন ঘটনা ধরা পড়ে গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে। দেখা যায়, গাড়িতে উঠেই দুদক চেয়ারম্যান সিট বেল্ট বাঁধলেন। একই সময়ে দেখা যায়, চেয়ারম্যানের গাড়িচালক এবং দেহরক্ষীও সিট বেল্ট বাঁধলেন।

এ বিষয়ে দুদক চেয়ারম্যানের কাছে জানতে চাইলে তিনি সবাইকে আইনের ব্যত্যয় না ঘটিয়ে মেনে চলার অনুরোধ করেন।

এ বিষয়ে দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা এবং দুদকের অন্যতম মুখপাত্র প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য বলেন, দুদক চেয়ারম্যান প্রতিটি সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে আইন অনুসরণ করার চেষ্টা করেন। তিনি আইন না মানাকেই দুর্নীতি এবং অনিয়মের অন্যতম কারণ বলে মনে করেন।

কিছুদিন আগে দুদক চেয়ারম্যান রাস্তায় দাঁড়িয়ে পুলিশের সহায়তায় উল্টো পথে গাড়ি চলা প্রতিরোধ করেছিলেন। আইন না মানাকেই দুর্নীতি মনে করেন দুদক চেয়ারম্যান। আইন মানার জন্যই তিনি বারবার আহ্বান জানান।

সড়ক ব্যবস্থাপনার বিষয়ে দুদক চেয়ারম্যান বলেছিলেন, ফিটনেসবিহীন গাড়ি, নসিমন, করিমন, লেগুনা জাতীয় গাড়িই সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ। সড়ক ব্যবস্থাপনায় ২২ দফা সুপারিশ পাঠিয়েছিলেন সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ে। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, ভূমি, সড়ক যোগাযোগ মন্ত্রণালয়, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, বিএসটিআইসহ ২৫টি সরকারি প্রতিষ্ঠানে বিশেষ টিম করে দুদক।

মূলত এসব প্রতিষ্ঠানে বিদ্যমান আইন ও বিধি-বিধান প্রতিপালনের ত্রুটি-বিচ্যূতির অনুসন্ধান করে দুদকে প্রতিবেদন পেশ করার নির্দেশ দেওয়া হয় এসব টিমকে। এসব প্রতিবেদনে বেড়িয়ে এসেছে আইনের নানা ফাঁক-ফোকর।

যেসব ক্ষেত্রে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ বেশি, এসব ক্ষেত্রে প্রচলিত আইন ও বিধি-বিধান না মানার কথাই বলেন বিশেষজ্ঞরা। ঘরে-বাইরে বিদ্যমান আইন মানার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত দুদক চেয়ারম্যান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here