রাসেল মাহমুদ ঃ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদে উপ-নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির শাফিন আহমেদের চেয়ে সাত লাখ ৮৬ হাজার ৮৭৩ ভোট বেশি পেয়ে নির্বাচিত হন তিনি।

বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাতে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবুল কাসেম আতিকুলকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন। শুক্রবার (০১ মার্চ)  সকাল ১১ টায় চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করা হবে।

এক হাজার ২৯৫টি কেন্দ্রের সবকটির প্রাপ্ত ফলাফলে দেখা যায়, আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল পেয়েছেন আট লাখ ৩৯ হাজার ৩০২ ভোট। আর জাতীয় পার্টির প্রার্থী শাফিন পেয়েছেন ৫২ হাজার ৪২৯ ভোট।

মেয়র পদে অপর তিন প্রার্থী এনপিপির আনিসুর রহমান দেওয়ান (আম) আট হাজার ৬৯৫, পিডিপির শাহীন খান (বাঘ) আট হাজার ৫৬০ এবং স্বতন্ত্র আব্দুর রহিম (টেবিল ঘড়ি) ১৪ হাজার ৪০ ভোট পেয়েছেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার সারাদিন ভোটগ্রহণ শেষে বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ফলাফল ঘোষণা শুরু করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

দেশের প্রধান অন্যতম দল বিএনপি অংশ না নেয়ায় এ নির্বাচনে ভোট দিতে তেমন আগ্রহ দেখায়নি নগরবাসী। যদিও ভোট শেষে নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেছেন, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটির সম্প্রসারিত অংশের ওয়ার্ডগুলোতে কাউন্সিলর পদে নির্বাচনে প্রায় ৫০ শতাংশ ভোট পড়তে পারে।

এ সিটিতে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টিসহ দলীয় প্রতীকে মেয়র পদে পাঁচজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বাকি তিনজন হলেন ন্যাশনাল পিপলস পার্টির আনিসুর রহমান দেওয়ান, প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক পার্টির শাহীন খান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুর রহিম।

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় মেয়র পদে এই উপ-নির্বাচনসহ ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) সম্প্রসারিত অংশের ওয়ার্ডগুলোতে কাউন্সিলর পদে নির্বাচনসহ কয়েকটি পৌরসভা, ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন/উপ-নির্বাচনের ভোট শুরু হয়।

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটির এ নির্বাচনে মোট ৩২৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। উত্তরের সম্প্রসারিত ১৮টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১১৬ জন এর মধ্যে ৪১ নংওয়ার্ডে মোঃ শফিকুল  ইসলাম (ঠেলাগাড়ি) বিপুল ভোটে নির্বাচিত হন। 

র্সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৪৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ইতোমধ্যে উত্তরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে একক প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন এবং ২১ নম্বর ওয়ার্ডে ৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আর দক্ষিণ সিটির সম্প্রসারিত ১৮টি ওয়ার্ডের সাধারণ ওয়ার্ডে ১২৫ জন ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ২৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

উত্তর সিটির সাধারণ ওয়ার্ড ৫৪ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড ১৮টি, মোট ভোটকেন্দ্র ১ হাজার ২৯৫টি এবং ভোটকক্ষ ৬ হাজার ৪৮২টি। এতে মোট ভোটার ৩০ লাখ ৩৫ হাজার ৬২১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৫ লাখ ৬৩ হাজার ৫৩০ জন এবং নারী ভোটার ১৪ লাখ ৭২ হাজার ৯১ জন।

ঢাকা উত্তর সিটির সম্প্রসারিত ১৮ ওয়ার্ডের মধ্যে ১৮টি সাধারণ ওয়ার্ড ও সংরক্ষিত ৬ ওয়ার্ডে মোট ভোটকেন্দ্র ২৪৩টি এবং ভোটকক্ষ ১ হাজার ৪৭২টি। মোট ভোটার ৫ লাখ ৯০ হাজার ৭০৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৯৮ হাজার ২৮৫ জন এবং নারী ভোটার ২ লাখ ৯২ হাজার ৪২০ জন।

 

ঢাকা দক্ষিণ সিটির সম্প্রসারিত ১৮টি ওয়ার্ডের মধ্যে সাধারণ ১৮টি ওয়ার্ড ও সংরক্ষিত ৬টি ওয়ার্ডে মোট ভোটকেন্দ্র ২৩৫টি এবং ভোটকক্ষ ১ হাজার ২৫২টি। মোট ভোটার ৪ লাখ ৯৬ হাজার ৭৩৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৫৪ হাজার ৪৯৭ জন এবং নারী ভোটার ২ লাখ ৪২ হাজার ২৩৮ জন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here