প্রতিকী ছবি

রাসেল মাহমুদঃ নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জে এক নারীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে বিয়ে না করায় ওই প্রেমিকের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছেন প্রেমিকা। মামলার আসামী প্রেমিককে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে প্রেমিকা। এদিকে অভিযুক্ত প্রেমিকের দাবি, ওই নারীর সঙ্গে তার কোন সম্পর্ক নেই।

এছাড়া, ওই নারী মোটা অংকের অর্থ আদায়ের লক্ষ্যে নাটক সাজিয়ে তাকে হয়রানি করছে। এ বিষয়টি নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ভোলাব ইউনিয়নের চারিতালুক এলাকায়।
অভিযোগকারী রুমা আক্তার জানান, তাদের বাড়ি খুলনা জেলার ডুমুরিয়া থানার আড়াজিয়া এলাকায়।

তার বাবার নাম মৃত আব্দুর রহমান। গত ৭ বছর আগে চাচাতো ভাই বিল্লাল শেখের সঙ্গে বিয়ে হয় রুমা আক্তারের। বিয়ের পর ঝুলি (৫) নামের এক কন্যা সন্তান হয়। পরে পারিবারিক বিভিন্ন কলহের জেরে ওই স্বামীর ঘর ছেড়ে সন্তানকে সাথে নিয়ে চলে এসে ঢাকার সাভারের হেমায়েতপুরের একটি পোশাক কারখানায় কাজ করেন। বছর খানেক আগে রুমা আক্তার রূপগঞ্জের চারিতালুক এলাকায় তার মায়ের কাছে চলে আসেন। এর পর চারিতালুক এলাকার পনির ভুইয়ার ছেলে সোহাগের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

বিয়ে করার আশ্বাস দিয়ে তাকে একাধিকবার দৈহিক মেলামেশা করে। পরে ঐ নারী তাকে বিয়ে করার জন্য চাপ দিলে সে বিয়ে করতে অস্বীকার করেন। পরে ওই নারী বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার পর আসামী এলাকায় প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে অথচ পুলিশ তাকে গ্রেফতার করছে না। গতকাল সোমবার দুপুরে রূপগঞ্জ প্রেসক্লাব কার্যালয়ে এসে মামলার আসামীকে গ্রেফতারের দাবি জানান তিনি।

এদিকে অভিযুক্ত সোহাগ জানান, রুমা আক্তার নামের ওই নারীর সঙ্গে তার কোন প্রেমের সম্পর্ক নেই বলে দাবী করেন। এছাড়া ওই নারী মোটা অংকের অর্থ আদায়ের লক্ষ্যে নাটক সাজিয়ে তাকে হয়রানি করছে। বিষয়টি সুষ্টু তদন্তের মাধ্যমে এর বিচার দাবি করেছেন সোহাগ। এ বিষয়ে ভোলাব তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ শহিদুল আলম বলেন, মামলাটির তদন্ত চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here