রাসেল মাহমুদ ঃ রূপগঞ্জের পাঁচাইখা এলাকায় এক মাদ্রাসা ছাত্র নির্যাতনের ঘটনায় হুজুরের ফতোয়া ব্যাটা কান্দস ক্যান, হুজুরে মারলে ঐ জায়গা বেহেশতে যাইবো।

দুষ্টমি করার অজুহাতে মাদ্রাসার এগারো বছরের এক ছাত্রকে প্রায় দশ মিনিট বেধড়ক পিটিয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। মঙ্গলবার রাতে পাঁচাইখা দারুল উলুম হেফজ মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার খবরে গোটা এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। অপরদিকে, স্থানীয় কতিপয় লোকজন হুজুরের পক্ষ নিয়ে ঐ ছাত্রের পরিবারকে দেখে নেওয়ার হুমকি দিচ্ছে।

পাঁচাইখা দারুল উলুম হেফজ মাদ্রাসার সভাপতি আব্দুর রহিম ও স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের হুজুর হাবিবুর রহমান ইতিপূর্বে মাদ্রাসার কয়েকজন ছাত্রকে বিনাকারণে নির্যাতন করেছে। এসব নির্যাতনের ঘটনার পর এনিয়ে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটি শালিসে বসে। ভবিষ্যতে এমন হবেনা এ অঙ্গীকারনামার পর বিষয়টি সুরহা হয়। এরপর বেশ কয়েক মাস এ হুজুরের নির্যাতন বন্ধ ছিলো।

এদিকে, মঙ্গলবার রাতে হুজাইফা নামে এক ছাত্রের বিরুদ্ধে দুষ্টমি করার অভিযোগ তুলে হুজুর হাবিবুর রহমানে তাকে বেধড়ক পেটায়। একপর্যায়ে ঐ হুজুর ফতোয়া বলেন, ব্যাটা কান্দস ক্যান। হুজুরের যেখানে মারবো সেই জায়গা বেহেশতে যাইবো। এ ফতোয়া তুলে প্রায় দশ মিনিট ঐ ছাত্রকে পেটায়।

নির্যাতনে হুজাইফার মাথায় প্রচন্ড আঘাত পায়। একপর্যায়ে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। খবর পেয়ে তার পরিবার তাকে উদ্ধার করে রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।

হুজাইফার আগে আরেক ছাত্রকেও বেধড়ক পিটিয়েছে বলে হুজাইফার পিতা ও ঐ মাদ্রাসার সভাপতি আব্দুর রহিম জানান। এ ব্যাপারে জানতে অভিযুক্ত হুজুরের সঙ্গে যোগাযোগের বহু চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইন্সপেক্টর তদন্ত এমদাদুল হক বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here