সোনারগাঁ প্রতিনিধি: সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দিতে বাধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে।

সোমবার রাতে স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহফুজুর রহমান কালামের সমর্থক নবনূর হোসেন সাবিক বাদি হয়ে একটি মামলা এবং আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী মোশারফ হোসেনের সমর্থক এস কে সজিব বাদি হয়ে অপর মামলাটি দায়ের করেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, আগামী ৩১ শে মার্চ চতুর্থধাপে সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষে ৪ঠা মার্চ সোমবার প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ছিলো। এদিন বিকাল সাড়ে ৩ টার দিকে আওয়ামীলীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মোশারফ হোসেন কর্মী সমর্থকদের নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিতে উপজেলায় সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে আসেন। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর তিনি উপজেলা পরিষদ চত্বরে কর্মী সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখছিলেন।

এদিকে বিকাল সোয়া ৪ টার দিকে চেয়ারম্যান পদের স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম কর্মী সমর্থকদের নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিতে উপজেলায় আসলে মোশারফ হোসেনের কর্মী সমর্থকরা তাকে সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে যেতে বাধা দেয়। এনিয়ে উভয় প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের মাঝে সংঘর্ষ এবং ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় পুলিশ উভয়পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ ঘটনায় সোমবার রাতে মাহফুজুর রহমান কালামের সমর্থক নবনূর হোসেন সাবিক বাদি হয়ে উপজেলার গোহাট্টা এলাকার মৃত মোস্তফা মিয়ার ছেলে ও সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নুকে প্রধান আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার অন্য আসামীরা হলেন- পৌরসভার গোবিন্দপুর এলাকার গাজী আক্রম আলীর ছেলে গাজী মজিবুর রহমান, বিশেষখানা এলাকার মালেক মাষ্টারের ছেলে মোস্তফা কামাল নিলু, কুলিয়াপাড়া এলাকার হাসেম প্রধানের ছেলে কামাল হোসেন, মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে সাইফুল ইসলাম বাবু, ফুলবাড়িয়া এলাকার সামসু দালালের ছেলে জামান, বাড়িচিনিস এলাকার মৃত চাঁন মিয়ার ছেলে এস কে সজিব, জবরুলের ছেলে রফিকুল হায়দার বাবু, বিশেষখানা এলাকার মিন্টু এবং একই এলাকার ফয়েজ ভান্ডারের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান বাবু। এই মামলায় আরো ৩০/৩৫ কে অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে।

অন্যদিকে মোশারফ হোসেনের সমর্থক এস কে সজিব বাদি হয়ে মাহফুজুর রহমান কালামের ছোট ভাই মোস্তাফিজুর রহমান মাসুমকে প্রধান আসামী করে আরেকটি মামলা দায়ের করেন। মামলার অন্য আসামীরা হলেন- উপজেলার নতুন টিপুরদী এলাকার সেলিম মিয়ার ছেলে মো. রনি, তোতা মিয়ার ছেলে আলমগীর, নাঈম, গোয়ালদী এলাকার সাজু এবং নোয়াইল এলাকার মৃত মনির হোসেনের ছেলে সাদিক।

এই মামলায় আরো ৪০/৫০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে। সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান মামলা দুটির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here