শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ১২:১২ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ
শিকড় সন্ধানে পত্রিকার জন্য সারাদেশে জেলা/উপজেলা/থানা এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে প্রতিনিধি আবশ্যক। শিক্ষাগত যোগ্যতা : কমপক্ষে স্নাতক ডিগ্রীধারী হতে হবে। ধুমপায়ীদের আবেদন করার প্রয়োজন নেই। নিয়োগপ্রাপ্তদের বিধিমোতাবেক বেতন-ভাতাদি দেয়া হবে। আবেদন করুন : editorshikornews@gmail.com / মুঠোফেোনেও বার্তা পাঠাতে পারেন : ০১৯৫-০৫৫০৫৮৫

শুক্রবার থেকে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে করোনা পরীক্ষা শুরু

রিপোর্টারের নাম / ১৪৫ বার
আপডেট সময় শুক্রবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২০

যশোর প্রতিনিধিঃ যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জিনোম সেন্টারে নমুনা পাওয়া সাপেক্ষে  শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে করোনা সন্দেহভাজনদের নমুনা পরীক্ষা। বৃহস্পতিবার বিকেলে যবিপ্রবির প্রশাসনিক ভবনের সম্মেলন কক্ষে ব্রিফিংয়ে এ ঘোষণা দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন। অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, দেশের এই দুঃসময়ে মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারছি, এটাই আমাদের সার্থকতা। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন অনুযায়ী সম্পূর্ণ ‘সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি’ অনুসরণ করে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা করা হবে।

ইতোমধ্যে জিনোম সেন্টারের সকল যন্ত্রের ফিটনেস পরীক্ষা করা হয়েছে। করোনা ভাইরাস শনাক্তের কিটের কার্যকারিতা পরীক্ষা করা হয়েছে। সবকিছু সঠিক থাকায় নমুনা পেলেই আমরা  শুক্রবার থেকেই করোনার পরীক্ষা শুরু করতে পারবো। অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন আরও বলেন, যবিপ্রবির জিনোম সেন্টারে প্রতিদিন কমপক্ষে ২০০টি নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব। এর বেশিও নমুনা পরীক্ষার সক্ষমতা ও জনবল আমাদের আছে। তবে এটা নমুনা সরবরাহের উপর নির্ভর করবে। ব্রিফিংয়ে যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন বলেন, দেশের এই দুঃসময়ে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এগিয়ে আসায় ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

শুধু যশোর নয় ঝিনাইদহ, মাগুরা ও নড়াইলের রোগীদের নমুনাও এখানে পরীক্ষা করা সম্ভব হবে। আশা করছি, সবকিছু ঠিক থাকলে শুক্রবার থেকে এখানে পরীক্ষা শুরু করতে পারবো। তিনি বলেন, নিজ নিজ উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের মাধ্যমে নমুনা সংগ্রহের পর, সিভিল সার্জনের কার্যালয় করোনা সন্দেহভাজন রোগীদের নমুনা যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে তা পাঠাবেন। ফলে এখানে কোনো রোগীর আসার প্রয়োজন নেই। জিনোম সেন্টারের সহযোগী পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. ইকবাল কবীর জাহিদ বলেন, আমরা নমুনা পরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় (বিএসএল-২) সতর্কতা অবলম্বন করবো।

এখানে করোনা সন্দেহভাজন কোনো রোগীও আসবে না। ফলে বিশ্ববিদ্যালয় বা এর আশপাশের বাসিন্দাদের কোনো স্বাস্থ্যঝুঁকি নেই। ব্রিফিংয়ে আরও উপস্থিত ছিলেন করোনা ভাইরাস পরীক্ষাকরণ দলের সদস্য ড. মো. নাজমুল হাসান, ড. শিরিন নিগার, ড. তানভীর ইসলাম, ড. সেলিনা আক্তার, ড. হাসান মোহাম্মদ আল-ইমরান, অভিনু কিবরিয়া ইসলাম, প্রভাস চন্দ্র রায়, রুবাইতুল আলম, সাজিদ হাসান, মেডিকেল অফিসার (সিভিল সার্জন) ডা. মো. রেহেনেওয়াজ, প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. আরিফুজ্জামান প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিস্তারিত

Theme Created By ThemesDealer.Com
Translate »